চকরিয়ায় বজ্রপাতে সিএনজি চালক ও ব্রেইন স্ট্রোকে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু

baz-jugantor_25465_1474349853-1.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া |
চকরিয়ায় বজ্রপাতে বেলাল উদ্দিন (৪০) নামের এক সিএনজি চালকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে বাড়ির পাশে ক্ষেতে চাষের কাজ করার সময় তিনি বজ্রপাতে গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা এগিয়ে এসে উদ্ধারের পর স্থানীয় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। নিহত বেলাল চকরিয়া পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম বাটাখালী গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে।
চকরিয়া পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বশিরুল আইয়ুব বলেন, সিএনজি চালক বেলাল উদ্দিন মঙ্গলবার বিকাল আনুমানিক তিনটার দিকে বাড়ির উঠানে সিএনজি গাড়িটি রেখে বাড়ির পাশে জমিতে ক্ষেতের কাজ করতে যান। ওইসময় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাতের সাথে প্রায় ৩০ মিনিট বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। কাউন্সিলর বলেন, এরই মধ্যে বজ্রপাতের শিকার হন সিএনজি চালক বেলাল। ঘটনাটি আঁচ করতে পেরে পাশের ক্ষেত্রের কৃষক ও বাড়ির লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে তাৎক্ষনিক স্থানীয় জমজম হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু ততক্ষনে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। #

চকরিয়ায় ডুলাহাজারা উচ্চ বিদ্যালয়ের
নবম শ্রেণীর ছাত্রীর ব্রেইন স্ট্রোকে মৃত্যু

চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী আসমাউল হুসনা ২৬ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয়ে যাওয়ার প্রস্ততি নেয়ার সময় নিজ বাড়িতে হঠাৎ করে ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢলে পড়েন। ওইসময় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাশ কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে পটিয়ায় পৌঁছালেই গাড়িতে তার মৃত্যু ঘটে। ছাত্রী আসমাউল হুমনা ডুলাহাজারা ইউনিয়নের পশ্চিম রংমহল এলাকার বাসির আহমদ ছবিরের মেয়ে।
এদিকে ব্রেইন স্ট্রোকে ছাত্রী আসমাউল হুসনার মৃত্যুর খবর পেয়ে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকরা তার বাড়ীতে ভিড় জমায়। হঠাৎ করে এ ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও এলাকাবাসির মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এদিন বাদে আছর স্থানীয় রহিমা ফকিরের জামে মসজিদে নামাজে জানাযা শেষে ওই ছাত্রীকে মসজিদ কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়েছে। অপরদিকে ছাত্রী আসমাউল হুসনার অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন ডুলাহাজারা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীরা। #