উখিয়ায় ইয়াবা গডফাদার আতাউল্লাহর খুঁটির জোর কোথায়?

PP.jpg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া |
উখিয়ায় ইয়াবা ছিনতাইয়ের ঘটনা ফাস হয়ে যাওয়ায় আতাউল্লাহ সিন্ডিকেট ক্ষুব্দ হয়ে সংবাদ কর্মীদের নানা ভাবে দমক দিয়ে যাচ্ছে। ইয়াবা পাচারের অন্যতম গডফাদার আতাউল্লাহ সিন্ডিকেটের ৩০ হাজার ইয়াবা ছিনতাইয়ের ঘটনা কে কেন্দ্র করে রক্ত ক্ষয় সংঘর্ষের আশংখ্যা দেখা দিয়েছে। আর এতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নজরধারী নেই বলেও চলে। কারন প্রশাসনের সাথে উক্ত সিন্ডিকেটের দহরম মহরম সম্পর্ক থাকায় তারাও ওই সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিতে চাচ্ছে না। গত শুক্রবার দুপুর ২ টার দিকে শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার খয়রাতি পাড়া গ্রামের আলী আহম্মদের ছেলে আতাউল্লাহর নাম্বার বিহীন নিজস্ব সিএনজি গাড়ীতে করে ৩০ হাজার ইয়াবার বৃহত্তর চালান নিয়ে উখিয়া থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়নের ধেছুয়াপালং এলাকায় গাড়ীটি পৌছলে, ওই এলাকার ছিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পরিকল্পিত ভাবে গাড়ী গতি রোধ করে গাড়ীর চালক রুস্তম কে ব্যাপক মারধর করে উক্ত ইয়াবা গুলো ছিনিয়ে নেয় বলে জানা যায়। উক্ত ইয়াবা ছিনতাইয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উখিয়ায় টব অব দ্যা টাউনে পরিণত হয়েছে। পাশা পাশি ক্ষুব্দ হয়ে সিন্ডিকেটের শীর্ষ গডফাদার হাজীর পাড়া গ্রামের বদিউর রহমান সিকদারের ছেলে মীর আহম্মদ ও নিউ ফরেষ্ট অফিস এলাকার জালু প্রকাশ ইয়াবা জালু, হাজীর পাড়া এলাকার শামশু হাজীর ছেলে নুরুল আবছার প্রকাশ ইয়াবা আবছার। সম্প্রতি উক্ত ইয়াবা সিন্ডিকেটের গডফাদাররা কোটবাজার এলাকায় ইয়াবা বেছা বিক্রির সময় থানা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়ে প্রায় ৩ মাস কারা ভোগ করে। ওই সময় পুলিশের হাত থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়ে যায় মরণ নেশা ইয়াবা ব্যবসায়ীদের অন্যতম গডফাদার নিউ ফরেষ্ট অফিস এলাকার জালু প্রকাশ ইয়াবা জালু। ইয়াবা ছিনতাইয়ের সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় উখিয়ার ইয়াবা আতাউল্লার সিন্ডিকেট গ্রেপ্তার আতংকে ভোগছে বলে জানা গেছে। সে সংবাদ কর্মীদের নানা কৌশল অবলম্বন করে ফার পেয়ে যেতে বিভিন্ন নেতা কর্মীদের নিকট সংবাদ না ছাপার জন্য মুঠো ফোনে সংবাদ কর্মীদের দমক দিয়ে যাচ্ছে।