অবশেষে সেই শিশুটির দাফন

pic_26089_1474906292.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক |
শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল ফরিদপুরে দাফনের আগে কেঁদে নড়ে ওঠা শিশুটি।

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে শিশু গালিবা হায়াত মারা যায়।

সোমবার বিকালে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে জানাজা শেষে শহরের আলিপুর পৌর কবরস্থানে সন্ধ্যা ৬টায় তাকে দাফন করা হয়।

বৃহস্পতিবার ফরিদপুরের জাহিদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালে জন্ম নেয়ার পর নড়াচড়া না করায় গালিবা হায়াতকে মৃত ভেবে তার আত্মীয়-স্বজনের কাছে দিয়ে দেয়া হয়।

কিন্তু চিকিৎসকের অবহেলাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দাফনের আগে নড়ে-চড়ে উঠে শিশুটি। দ্রুতই তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় পাঠানো হয় তাকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে চলেই যেতে হল না ফেরার দেশে।

শিশু গালিবার লাশ সোমবার বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটে ঢাকা থেকে ফরিদপুর আনা হয়। পরে বাদ আসর চানমারী ঈদগাহ মাঠে জানাজা হয় শিশু গালিবা হায়াতের।

জানাজায় পরিবারের সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ অংশ নেয়। জানাজার পর সন্ধ্যা ৬টার দিকে গালিবাকে দাফন করা হয় ফরিদপুরের আলিপুরস্থ পৌর কবরস্থানে। জানাজা পড়ান ঈদগাহ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আদেল উদ্দিন।

এদিকে মৃত ভেবে ফিরিয়ে দেয়া শিশুটির বিষয়ে চিকিৎসকদের দায়িত্বে অবহেলা রয়েছে কিনা তা জানতে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া এ বিষয়ে কোনো মামলা করা হবে কি না তা এখনও পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়নি।