চকরিয়া বদরখালী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ, ইউএনও’র কাছে নালিশ

ZZZZ.jpg

বদরখালী ইউপির আলোচিত চেয়ারম্যান খাইরুল বশর।

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া |
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বদরখালী ইউনিয়নের আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল বশরের বিরুদ্ধে এবার দরিদ্র জেলেদেরকে জিন্মি করে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইউপি চেয়ারম্যান অব্যাহত চাঁদা দাবি ও নানামুখী হুমকির কারনে বর্তমানে মাতামুহুরী নদীর উন্মুক্ত জলমহালে জাল বসিয়ে মাছ আহরণ করতে পারছেনা অন্তত দুই শতাধিক জেলে। এ অবস্থার কারনে উপজেলার জেলে পল্লী গুলোতে চলছে চরম উদ্বেগ ও আতঙ্ক। এব্যাপারে আইনী প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগী জেলেরা শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য আবেদন জানিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে।
দাখিল করা লিখিত অভিযোগে ভুক্তভোগী জেলেরা দাবি করেছেন, উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের সাতডালিয়া গ্রামের দরিদ্র জেলেরা দীর্ঘদিন ধরে মাতামুহুরী নদীর উন্মুক্ত জলমহালে জাল বসিয়ে মাছ আহরণ করে পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। এই পেশা থেকে অর্জিত আয়ের মাধ্যমে পরিবারের ভরণপোষণের পাশাপাশি জেলে পরিবার গুলোর ছোট শিশু কিশোররা লেখাপড়া করছেন। কিন্তু সম্প্রতি সময়ে ভুক্তভোগী জেলে পরিবার গুলোকে বদরখালী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খাইরুল বশর মাতামুহুরী নদীর ওই উন্মুক্ত জলমহালে জাল বসিয়ে মাছ আহরণ করতে দিচ্ছেনা। লিখিত অভিযোগে জেলেরা দাবি করেছেন, ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল বশর প্রত্যেক জাল প্রতি ৩০হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করছেন। তার কথা মতো চাঁদা না দেয়ার কারনে নানা হুমকি ধমকির মুখে জেলেরা বর্তমানে জলমহাল মাছ আহরণ করতে যেতে সাহস পাচ্ছেনা।
সমাজে পিছিয়ে থাকা এসব দরিদ্র জেলে জনগোষ্টি তাদের রুটি-রুজির পথের প্রতিবন্ধকতা প্রতিরোধপুবর্ক অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনের কাছে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। লিখিত অভিযোগটিতে ওই এলাকার জেলে প্রতিনিধি আলমগীর, আশকর আলী, শহর মুল্লুক, জয়নাল উদ্দিন ও আবুল কাশেম স্বাক্ষর করেছেন।
জানতে চাইলে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম বলেন, আমি শনিবার সারাদিন দাপ্তরিক কাজে জেলা শহরে ছিলাম। তাই জেলেদের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিয়েছেন কিনা এখনই বলতে পারছিনা। তবে ওই রকম অভিযোগ দিয়ে থাকলে অবশ্যই তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।