ভারতের হামলার আশংকায় পাকিস্তান!

pakistan_war_india_kashmir_25617_1474470886.jpg

ভারত যেকোনো মুহূর্তে হামলা চালাতে পারে এমন একটি আশংকা তৈরি হয়েছে পাকিস্তানে। কয়েকটি বিষয় এ গুঞ্জনের পালে হাওয়া দিয়েছে।

পাকিস্তানের কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের দাবি, ভারতের সেনাবাহিনী পাকিস্তান সীমান্তের দিকে এগোচ্ছে।

এদিকে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল রাহিল শরীফের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেছেন বলে জানিয়েছে দেশটির প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ডন।

রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা পিআইএ’র একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ডন আরও জানায়, পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলে সকাল থেকে গিলগিট, স্কার্দু ও চিত্রাল এলাকায় বিমান পথ বন্ধ করে দিয়েছে বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। এজন্য সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ জানানো হয়নি।

তবে বিবিসির সংবাদদাতারা জানান, ভারত পাকিস্তানকে আক্রমণ করতে পারে এমন আশংকায় এসব ফ্লাইট বন্ধ রাখা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া ইসলামাবাদ ও পেশোয়ারের মধ্যকার মূল মহাসড়কের কিছু অংশও বন্ধ রাখা হয়েছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, সংস্কারের জন্য মহাসড়ক বন্ধ করা হয়েছে। কিন্তু এই মহাসড়ক যুদ্ধবিমানের ওঠানামায় ব্যবহার করা সম্ভব।

ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের উরিতে একটি সেনা ঘাঁটিতে রোববার ভোরে একদল বন্দুকধারীর হামলায় ১৮ জন সেনা নিহত হন। আহত হন আরও ১২ জন।

ওই হামলায় পাকিস্তানের পরোক্ষ বা প্রত্যক্ষ ভূমিকা ছিল বলে দাবি করে ভারত। তবে ভারতের এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছে পাকিস্তান।

ভারতের দাবি, পাকিস্তান-ভিত্তিক জয়েশ-ই-মুহম্মদ নামের একটি জঙ্গি গোষ্ঠী এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তাদের পাকিস্তানে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এ নিয়ে দুদেশের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়। ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির কয়েকজন নেতা এবং দেশটির সাবেক কয়েকজন সেনা কর্মকর্তা এজন্য পাকিস্তানে ‘সীমিত’ আকারে হামলার দাবি জানান।

বিপরীতে কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রধান রাহিল শরীফ বলেছেন, যেকোনো ধরনের ‘প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ’ চ্যালেঞ্জের জবাব দিতে প্রস্তুত আছে সেনাবাহিনী।