পেকুয়ায় সাংবাদিক ঘায়েলে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামীর সাথে কনেস্টবলের গোপন বৈঠকে তোলপাড়!

ovijog-tt_20.jpg

পেকুয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি.
কক্সবাজারের পেকুয়ায় সাংবাদিক ঘায়েলে ওয়ারেন্টভুক্ত বিতর্কিতের সাথে কনস্টেবলের গোপন বৈঠকের চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে তোলপাড় দেখা দিযেছে। ঘটনাটি ঘঠেছে গত ২১সেপ্টম্বর বুধবার রাত সাড়ে এগারটায় উপজেলার কলেজ গেইট চৌমুহুনী ফুলকলি ভোগ্য বিপনীর পিছনের গলিতে। যা নিয়ে সচেতন মহলে গভীর উদ্বেগ, ক্ষোভ ও হতাশার পাশাপাশি জনমনে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। জানা যায়, পেকুয়ায় কর্মরত তুহিন মাহমুদ নামে এক ডিএসবি পুলিশের অপকর্ম নিয়ে পত্র পত্রিকায় ধারাবাহিক সচিত্র সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ ও প্রচার হয়। যা নিয়ে এলাকার সর্বমহল স্থানীয় সংবাদকর্মীদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে উঠে। এঘটনায় অভিযুক্ত ডিএসবি পুলিশ কনস্টেবল তুহিন মাহমুদ ও তার সহযোগীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে জনসম্মুখে পত্র পত্রিকা ও সংবাদকর্মীদের জড়িয়ে আপত্তিকর মন্তব্যে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর পাশাপাশি স্থানীয় সংবাদকর্মীদের দেখে নেওয়ার হুংকার দেন। এবিষয়েও পুনরায় পত্র পত্রিকায় সচিত্র সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ হলে অভিযুক্ত ডিএসবি পুলিশ কনস্টেবল তুহিন মাহমুদ তার স্থানীয় রুমমেট এস.আইয়ের সাথে শলাপরামর্শ করে কর্মরত স্থানীয় সংবাদকর্মীদের নামে মিথ্যা চাঁদাদাবীর মামলা দায়ের, একাধিক জিডি মামলায় আসামী করার হুমকির পাশাপাশি সংবাদকর্মীদের পাড়ালিয়া বিদ্বেষী বিতর্কিত ব্যক্তিবর্গ ও একাধিক মামলায় অভিযুক্ত এবং ওয়ারেন্টভুক্ত আসামীদের সাথে দহরম মহরমে গোপন বৈঠকে মেতে উঠার জনশ্রুতি পাওয়া গেছে। একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছে, গত ২১সেপ্টম্বর বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবনিয়া এলাকার মৃত মিয়া হোছনের পুত্র চাঞ্চল্যকর জারুলবনিয়া ষ্টেশন ডাকাতির হোতা, রাতের আঁধারে বসতঘরে আগুন লাগিয়ে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক পরিবারের প্রাণনাশ চেষ্টা ও একাধিক বন, ভুমিদূস্যতা দাঙ্গাহাঙ্গামা মামলায় সংশ্লিষ্ট ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামী নুর মোহাম্মদ প্রকাশ হনুমাইন্যে চোরাকে খুঁজে এনে পেকুয়া কলেজ গেইট চৌমুহুনীর ফুলকলির পিছনের একটি কোচিং সেন্টার সংগ্লন্ন ভাড়ায় গোপন বৈঠক করেন। প্রায় ১ঘন্টার ওই গোপন বৈঠকে অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল তুহিন মাহমুদ ও তার রুমমেট এস.আই প্রতিবেদন প্রকাশে সংশ্লিষ্ট সংবাদকর্মীদের ঘায়েলের বিষয় নিয়ে ব্যাপক আলাপ আলোচনা শলাপরামর্শ করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা আঁচ করতে পেরে বিষয়টি স্থানীয় সংবাদকর্মীদের অবহিত করলে তারা সেখানে ছুটে গেলে দ্রুত বৈঠকটি ভুন্ডুল করে দিয়ে সংশ্লিষ্টরা পিছনের দরজা দিয়ে সটকে পড়েন। পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়ার কাছে জানতে চাইলে বিষয়টি তাকে কেউ অবগত করেনি মন্তব্য করে বলেন, ডিএসবি পুলিশের কার্যক্রম পরিচালিত হয় কক্সবাজার সদর থেকে যার সাথে থানা পুলিশের সংশ্লিষ্টতা নেই।