Monday, August 8, 2022
Homeআন্তর্জাতিকমিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ৮ সদস্যের বানিজ্য প্রতিনিধি দল ৫ দিনের সফরে কক্সবাজারে

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ৮ সদস্যের বানিজ্য প্রতিনিধি দল ৫ দিনের সফরে কক্সবাজারে

জাবেদ ইকবাল চৌধুরী |
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ৮ সদস্যের বানিজ্য প্রতিনিধি দল ৫ দিনের সফরে কক্সবাজারে পৌঁেছছেন। রাখাইন স্টেট চেম্বার এন্ড কমার্স এর প্রেসিডেন্ট টিং অং ও এর নেতৃত্বে এ টিমটি মিয়ানমারে মংডু হয়ে ২৫ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকেল ৪ টার সময় টেকনাফ স্থল বন্দরে পৌঁেছন। এসময় মিয়ানমারের বানিজ্য প্রতিনিধি দলকে স্বাগত জানান টেকনাফ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা (সহকারী কমিশনার) মোমেনা আক্তার । এ সময় উপস্থিত ছিলেন টেকনাফ মডেল থানার ওসি মোঃ আব্দুল মজিদ, টেকনাফ স্থল বন্দর রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান, বন্দর পরিচালনা প্রতিষ্ঠানের ডিজিএম আনোয়ার হোসেন, কক্সবাজার চেম্বার এন্ড কর্মাসের একটি অংশের সহ সভাপতি মোর্শেদ আক্তার চৌধুরী খোকা, উদয় শংকর পাল মিঠু, টেকনাফ সীমান্ত বানিজ্য ব্যবসায়ী এম আবছার সোহেল, মোঃ হাসেম প্রমুখ।
প্রতিনিধি দল ২৬ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে কক্সবাজার চেম্বার এন্ড কমার্স এর সাথে মতবিনিময়, বিকেলে রামু বৌদ্ধ মন্দির প্ররিদর্শন ও রাখাইন কমিউনিটির সাথে বৈঠক, মঙ্গল ও বুধ বার চট্্রগ্রাম চেম্বার এন্ড কমার্স এর সাথে মতবিনিময়, সিপিইজেড, কেপিইজেড ও চট্টগ্রাম বন্দর পরিদর্শন শেষে ৩০ সেপ্টেম্বর মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে।
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের এ বানিজ্য প্রতিনিধি দলের অন্যান্য সদস্যরা হচ্ছেন ব্যবসায়ী মিনথ জ্য মো, ইউ মং টিন নিনথ, সৌ পিং, থোন থোন উইন, অং অং, তেজা ও ও টিন লুইন। বাংলাদেশের পক্ষে সমন্বয়কের ভুমিকা পালন করে এ বানিজ্য দলকে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন মিয়ানমারের সিটওয়ে (আকিয়াবস্থ) বাংলাদেশ মিশনের কর্মকর্তা শাহ আলম খোকন।
তিনি জানান, মিয়ানমারের গনতান্ত্রিক প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার প্রেক্ষিতে দুদেশের বানিজ্য সম্প্রসারন ও অন্যান্য দ্বীপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার এ সময়ের দাবী। অবস্থানগত কারনে মিয়ানমারে রাখাইন রাজ্যের সাথে বাংলাদেশের গভীর সর্ম্পক তৈরী, বর্তমানে চলমান সীমান্ত বানিজ্য সম্প্রসানে বিরাজমান বাধা দূরীকরনসহ বিভিন্ন বিষয়ে সুদৃঢ় ঐক্য প্রয়োজন। তাই বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগ নিয়েছে মিয়ানমারের সাথে সর্ম্পক জোরদারে। বানিজ্য প্রতিনিধি দলের ৫ দিনের এ সফর দু’দেশের মধ্যে বানিজ্য সর্ম্পক গতিশীল করতে উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন। এছাড়া বাংলাদেশ মিয়ানমার চলমান বানিজ্য একশ মিলিয়ন ডলার থেকে পাচঁশ মিলিয়ন ডলারে নিয়ে যাওয়া অন্যতম একটি উদ্দেশ্য বলে জানান তিনি।
teknaf-pic-001

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments