দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও দক্ষিণ আন্দামান সাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত

: হুমায়ুন রশিদ
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ আন্দামান সাগর এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, মঙ্গলবার (৯ মে) রাত ৮টার পর সুস্পষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হয়।

দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ আন্দামান সাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ঘনীভূত হয়ে দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আরও ঘণীভূত হতে পারে।

এটি আরও ঘনীভূত হয়ে প্রথমে ১১ মে পর্যন্ত উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে এবং পরবর্তীতে দিক পরিবর্তন করে ক্রমান্বয়ে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে।

আগামীকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। তবে, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দুই-এক জায়গায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

তাপপ্রবাহের বিষয়ে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া এবং পটুয়াখালী জেলার ওপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এছাড়া, দেশের অন্যত্র মৃদু মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

এদিকে, কানাডার সাসকাচোয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া ও জলবায়ুবিষয়ক পিএইচডি গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় মোখা চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার উপকূলের ওপর দিয়ে অতিক্রম করার সময় এই দুই জেলার উপকূলীয় এলাকাগুলো ১৫ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা আছে।

ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন, মঙ্গলবার (৯ মে, ২০২৩) দুপুর ১২টার কাছাকাছি সময়ে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে সুস্পষ্ট নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, আজ মধ্যরাতের মধ্যে এই সুস্পষ্ট নিম্নচাপটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে ও আগামীকাল ১০ মে সন্ধ্যার আগে পূর্ণাঙ্গ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। ঘূর্ণিঝড়টির নাম হবে মোখা।