Monday, January 17, 2022
Homeউখিয়াউখিয়া টেকনাফে জামাই শাশুড়ের ইয়াবা বাণিজ্য

উখিয়া টেকনাফে জামাই শাশুড়ের ইয়াবা বাণিজ্য

রফিক মাহমুদ, উখিয়া :
উখিয়া টেকনাফে ইয়াবা বাণিজ্য অপ্রতিরোধ্য ভাবে ছড়িয়ে যাচ্ছে। অল্পদিনে কোটিপতি হওয়ার নেশায় প্রতিদিনই ইয়াবা বাণিজ্যের সাথে যুক্ত হচ্ছে নিত্যনতুন মূখ। প্রশাসনের ইয়াবা বিরোধী মনোভাবের মাঝেও উখিয়া টেকনাফের গড়ফাদাররা রয়েছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। এরই মাঝে ব্যাপকভাবে আলোচনায় চলে এসেছে উখিয়া-টেকনাফ ভিক্তিক জামাই-শাশুড়ের ইয়াবা বাণিজ্যের বিষয়টি।
বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, টেকনাফ উপজেলার স্বরাষ্টমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা গড়ফাদার ইমরান ওরফে পুতিয়া মিস্ত্রি উখিয়ার শাশুড়বাড়ীকে টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে ব্যবহার করে রমরমা ইয়াবা বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। ইয়াবা ব্যবসায় যুক্ত করেছে তার শাশুড় বাড়ীর লোকদের । এতে তার শাশুড় উপজেলার মাছকারিয়া মোঃ আলী ভিটা গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী নজির আহামদসহ শাশুড়বাড়ীর লোকেরা অল্পদিনে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়েছে। স্থানীয় দু,একজন প্রভাবশালীকে ম্যানেজের মাধ্যমে বনভিাগের বিশাল জায়গায় নির্মান করছেন বহুতল ভবন। সম্প্রতি নজির আহামদ ঢাকা মেট্রো-চ-৫১-৭৭৩১ নাম্বারের একটি ভক্সি গাড়ী কিনেছেন। তার ছেলে ব্যবহার করছে দুইটি দামি মোটর সাইকেল, এখন তিনি আর মাছ ব্যবসা করছে না। করছেন মেয়ে জামাই ইমরানের সাথে ইয়াবা ব্যবসা।
স্থানীয় জনগনের মতে, উখিয়া বাজারের ক্ষুদ্র মাছ ব্যবসায়ী নজির আহামদের হঠাৎ উত্থানটা মূলত হ্নীলায় মেয়ে বিয়ে দেওয়ার পর থেকে। টেকনাফের গড়ফাদার পুতিয়া মিস্ত্রি উখিয়ার শাশুড় বাড়ীকে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবার নিরাপদ আস্তানা হিসেবে ব্যবহারের মাধ্যমে শাশুড় বাড়ীর লোকদের নামে-বেনামে বিপুল পরিমান সম্পদ কিনে রেখেছেন। এছাড়া শাশুড় নজির আহামদ বিভিন্ন এলাকায় নামে-বেনামে অসংখ্য জমিজমা কিনেছেন। তাদের হঠাৎ পরিবর্তন এলাকায় ব্যাপক প্রশ্নে জন্ম দিয়েছে। এদিকে গত ৭ ফেফ্রয়ারি ভোর রাতে টেকনাফ মডেল থানার এ.এস.আই কাজ¦ী আব্দুল মালেকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উপজেলার হ্নীলা লেদা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩হাজার ১শ পিচ ইয়াবা বড়িসহ স্থানীয় মৃত লাল মিয়ার পুত্র মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (২৫) কে আটক করলে ইয়াবার প্রকৃত মালিক গড়ফাদার হ্নীলা পশ্চিম সিকদারপাড়া আজিজুল হক মিস্ত্রির পুত্র ইমরান ওরফে পুতিয়া মিস্ত্রি (৩২) কে আটক করতে পারেনি পুলিশ। গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর আলমের স্বীকারোক্তি মতে গড়ফাদার পুতিয়ার বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় পলাতক দেখিয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে টেকনাফ মডেল থানা সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments