ইসরাইলের কল্পনার চেয়েও সংগঠিত হামাস!

: নুরুল করিম রাসেল
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

অনলাইন ডেস্ক :

ফিলিস্তিনির স্বাধীনতাকামী বাহিনী হামাস এমন একটি সেনাবাহিনীর সঙ্গে লড়ছে যারা অত্যাধুনিক ভারী অস্ত্রশস্ত্র আর বিমান শক্তিতে সুসজ্জিত। ইসরাইলের আধুনিক সব অস্ত্রের বিপরীতে হামাসের কাছে আছে ঘরে তৈরি ইমপ্রোভারিস্ট এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি), রকেট অথবা হালকা কিছু অস্ত্রশস্ত্র। আর এ কারণেই অভিজানে কৌশলগত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে দলটি

হামাস ইসরাইলে অভিযান চালিয়েছে গত শনিবার। হামাসের এই অভিযানে তারা যে কৌশলগুলো ব্যবহার করেছে তাতে সংগঠনটিকে সুসজ্জিত বলেই মনে করছেন সমরবিশেষজ্ঞরা।

আকশপথ, সমুদ্র ও স্থলপথ ব্যবহার করে ইসরাইলের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে হামাস। এ ধরনের অভিযান সামরিক পরিভাষায় মাল্টি-ডোমেন অপারেশন হিসাবে পরিচিত। হামাস ড্রোন ব্যবহার করে ইসরাইলের প্রাথমিক আক্রমণ চালায়। এরপরই শুরু করে রকেট হামলা। এগুলো মূলত পরবর্তী পর্যায়ের প্রস্তুতি নিতে গঠনমূলক অপারেশন। পরবর্তী পর্যায়ে ইসরাইলে সরাসরি অনুপ্রবেশ করে তারা। ইসরাইলের সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে আক্রমণসহ সৈন্যদের বন্দি ও সামরিক সরঞ্জাম দখল করে হামাস। আলজাজিরা।

ইসরাইলে রাজনৈতিক উত্তেজনা চলাকালীন অভিযানের পরিকল্পনা করেছিল হামাস। হামাস ইসরাইলের গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করে তা অধ্যয়ন করেছে। ইসরাইলের বিভিন্ন সূত্র শনাক্ত করেছে। আর তাদের লুকানোর প্রস্তুতির জন্য সেনাবহিনীর মনোযোগ অন্যত্র সরিয়ে রেখেছে।

বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদন অনুযায়ী, হামাস টানেল অবকাঠামোগুলোতেও প্রচুর বিনিয়োগ করেছে। ভূগর্ভস্থ প্যাসেজের একটি বিস্তৃত নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। আর এর মাধ্যমেই তারা ইসরাইলের চেকপয়েন্টগুলোতে সরাসরি প্রবেশ করতে পেরেছে। হামাসের ভূগর্ভস্থ টানেলের ব্যবহার ইসরাইলের গোয়েন্দাদের কাছ থেকে তাদের প্রস্তুতি গোপন করতে সহায়তা করেছে।

অতীতের বিভিন্ন সংঘর্ষ থেকে নেওয়া অভিজ্ঞতা ব্যবহার করেছে হামাস। ২০০২ সালে জেনিনে যোদ্ধাদের ব্যবহƒত কৌশলগুলো অধ্যয়ন করেছে তারা। আর এর সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করেছে নিজস্ব উদ্ভাবন।

অনেকে মনে করছেন তারা হিজবুল্লাহর সামরিক অবকাঠামো ও বিদ্রোহী যুদ্ধ কৌশল থেকে অনুপ্রেরণা নিয়েছে সংগঠনটি।
জেনিনের যুদ্ধ থেকে হামাস যে মূল শিক্ষাগুলো পেয়েছে তার মধ্যে একটি হলো হতাহতের ঘটনা ঘটানো। আর ইসরাইলের সামরিক অভিযানকে ব্যাহত করতে আইইডি ব্যবহার। আইইডি সবচেয়ে কম খরচে তৈরি করা যায় আর সহজেই লুকিয়ে রাখা যায়। জেনিন যোদ্ধাদের কাছ থেকে আরেকটি সম্ভাব্য পাঠ ছিল ইসরাইলের নজরদারি এড়াতে ও আকস্মিক আক্রমণ শুরু করতে টানেলের নেটওয়ার্ক ব্যবহার।

ইসরাইলের বাহিনীর সঙ্গে অতীতের সংঘর্ষ, বিশেষ করে গাজায় ২০১৪ সালের হামলার সময় হামাসকে শহুরে যুদ্ধের মূল্য, টানেল নেটওয়ার্ক, মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ ও অসামঞ্জস্যপূর্ণ যুদ্ধের সর্বাধিক ব্যবহার কীভাবে করা যায় তা