ইতিকাফ অবস্থায় মসজিদ থেকে বের হওয়ার বিধান

: নুরুল করিম রাসেল
প্রকাশ: ২ years ago

মাইমুনা আক্তার : হানাফি মাজহাবমতে ইতিকাফকারীর মসজিদের বাইরে আসার দুটি অবস্থা রয়েছে।

(১) রমজানের শেষ দশ দিনের ইতিকাফ, যা সুন্নতে মুআক্কাদায়ে কেফায়া। এ ক্ষেত্রে মসজিদ থেকে বের হওয়া সাধারণভাবে জায়েজ নেই। রাতে বা দিনে ইচ্ছাকৃত হোক কিংবা ভুলবশত।

সুতরাং কোনো ধরনের অপারগতা কিংবা যেসব ওজরের কারণে এই ইতিকাফে মসজিদ থেকে বের হওয়ার অনুমতি আছে, ওই সব ওজর ছাড়া মসজিদ থেকে বের হলে ইতিকাফ ভেঙে যাবে। উল্লেখ্য, মানতকৃত ওয়াজিব ইতিকাফের বিধানও একই।

মসজিদের বাইরে আসার তিনটি কারণ আছে

প্রাকৃতিক প্রয়োজন : যেমন—প্রস্রাব-পায়খানা করার জন্য কিংবা স্বপ্নদোষ হয়ে গেলে মসজিদে গোসল করা অসম্ভব হলে ইত্যাদি। এসব ক্ষেত্রে শুধু ফরজ গোসল এবং পায়খানা-পেশাব ইত্যাদির জন্য মসজিদ থেকে বের হয়ে ওই কাজের জন্য যে পরিমাণ সময় লাগে ঠিক ওই পরিমাণ সময় বাইরে থাকতে পারবে।

শরয়ি ওজরের কারণে মসজিদ থেকে বের হওয়া : যেমন—ইতিকাফকৃত মসজিদে যদি জুমার নামাজ না হয় এবং জুমার নামাজের জন্য অন্য মসজিদে যেতে হয়, এ ক্ষেত্রে ঠিক এ পরিমাণ সময় হাতে নিয়ে মসজিদ ত্যাগ করবে; যে সময়ের মধ্যে জামে মসজিদে গিয়ে খুতবার আজানের পূর্বে চার রাকাত (সুন্নত) নামাজ আদায় করতে পারে। আর জুমার নামাজ আদায়ের পর এ পরিমাণ সময় বিলম্ব করবে। যতক্ষণ চার রাকাত কিংবা ছয় রাকাত নামাজ আদায় করতে পারে। যদি এর চেয়ে বেশি সময় অবস্থান করে, তবে এ জামে মসজিদটিও ইতিকাফের উপযুক্ত ক্ষেত্র হওয়ার কারণে ইতিকাফ ফাসেদ না হলেও এরূপ করা মাকরুহে তানজিহি। কেননা শুরু থেকে যে মসজিদে ইতিকাফ করা পছন্দ করে নিয়েছে বিনা প্রয়োজনে তার বিপরীত করা হয়েছে।

এমন সব ওজরের কারণে বের হওয়া—যেগুলোর কারণে বের হতে বাধ্য হয়ে পড়ে। যেমন : যে মসজিদে ইতিকাফ করেছে, ওই মসজিদে অবস্থান করা জান-মালের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়লে কিংবা মসজিদ বিধ্বস্ত হতে শুরু করলে। এসব ক্ষেত্রে মসজিদ থেকে বের হয়ে অন্য কোনো মসজিদে ইতিকাফের নিয়তে চলে যাওয়া যেতে পারে।

(২) দ্বিতীয় অবস্থা হলো, ইতিকাফ (মানতকৃত নয়) নফল হবে। এ অবস্থায় বিনা প্রয়োজনে মসজিদ থেকে বের হতেও কোনো আপত্তি নেই। কেননা নফল ইতিকাফে এ রকম বাঁধা-ধরা কোনো নিয়ম-কানুন নেই যে এ পরিমাণ সময়ের বেশি সময় মসজিদের বাইরে অবস্থান করার দ্বারা ইতিকাফ ভেঙে যায়।

(নফল ইতিকাফে) মসজিদের বাইরে আসার দ্বারা পূর্বোকৃত ইতিকাফ নষ্ট হয় না; বরং সমাপ্ত হয়ে যায়। মসজিদে ফিরে এসে পুনরায় ইতিকাফ করলে এর জন্য ভিন্ন সাওয়াব পাওয়া যাবে। কিন্তু ওয়াজিব ইতিকাফে বিনা ওজরে মসজিদের বাইরে আসা গুনাহ এবং এতে পূর্বোকৃত ইতিকাফ নষ্ট হয়ে যায়।

এই হুকুমগুলো ওয়াজিব ইতিকাফের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য—যদি তা ধারাবাহিক কয়েক দিনে করার নিয়ত করা হয়। পক্ষান্তরে যদি শুধু সাধারণ মান্নত ইতিকাফের নিয়ত হয় বা কোনো নির্দিষ্ট সময়ের ইতিকাফের নিয়ত থাকে; কিন্তু ধারাবাহিকতার শর্তমুক্ত থাকে, তবে ওই ক্ষেত্রে ইতিকাফ অবস্থায় মসজিদ থেকে বিনা প্রয়োজনেও বের হওয়া বৈধ। তবে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ইতিকাফ শেষ হয়ে যাবে এবং ফিরে এসে পুনরায় ইতিকাফের নিয়ত করতে হবে। হ্যাঁ, প্রথম থেকেই যদি পুনরায় ফিরে আসার নিয়ত করে থাকে অথবা মসজিদ থেকে বের হওয়া প্রয়োজনের কারণে হয়, তাহলে নতুন করে নিয়ত করার প্রয়োজন নেই। একই হুকুম নফল ইতিকাফের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। (কিতাবুল ফিকহ : ১/৯৫৩, মাসায়েলে ইতিকাফ)