টেকনাফে ৬গুণ ভিজিডি বরাদ্ধ বাড়িয়েছে সরকার

V.jpg

হুমায়ূন রশিদ / জসিম উদ্দিন টিপু : টেকনাফে ভিজিডিভোগী অতিদরিদ্র মহিলাদের জন্য ভিজিডি বরাদ্ধ বৃদ্ধি করেছে। বিগত বছর সমুহে ৩ হাজার ৪ শ ৬১ জনের স্থলে আগামী অর্থবছর হতে ২৩ হাজার ৪ শ ৬১ জনকে ভিজিডি বরাদ্ধ বৃদ্ধি করেছে সরকার। সরকারের এই মহৎ উদ্যোগ বাস্তবায়নে মেম্বার-মহিলা মেম্বারদের গ্রাম্য রাজনীতির খপ্পরে পড়ে প্রকৃত অসহায়-দরিদ্র মহিলারা বাদ পড়ছে কিনা সেদিকে সকলের সুদৃষ্টি দরকার।
জানা যায়, স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্দেশনা এবং উপজেলা পরিষদের পরামর্শক্রমে আগামী ২০১৯-২০ইং অর্থ বছর হতে হোয়াইক্যং ইউনিয়নে ৬শ ৬০জনের স্থলে ৪ হাজার ২শ জন, হ্নীলা ইউনিয়নে ৬শ ৩০জনের স্থলে ৪হাজার জন, টেকনাফ সদর ইউনিয়নে ৬শ ৫০জনের স্থলে ৫ হাজার ২শ জন, সাবরাং ইউনিয়নে ৭শ ৬০জনের স্থলে ৬হাজার জন, বাহারছড়ায় ৪শ ৪১জনের স্থলে ৩ হাজার ২শ জন এবং সেন্টমার্টিনে ৩শ ২০জনের স্থলে ৮শ ৬১জন অতিদরিদ্র মহিলাকে ভিজিডি সহায়তা প্রদানের জন্য চুড়ান্ত করা হয়েছে। যা বিগত সময়ের চেয়ে প্রদত্ত বরাদ্ধের ৬ গুণের অধিক বেশী।
এই ব্যাপারে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর কবির বলেন, স্থানীয় এমপি, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের আন্তরিকতায় গ্রামীণ অসহায়-দরিদ্র মানুষের জন্য সরকারের এই মহৎ উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। সবাইকে দল-মত এবং গ্রæপিংয়ের উর্ধ্বে উঠে এই মহৎ কার্যক্রম বাস্তবায়নে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
তবে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের কারণে বেকার হয়ে পড়া টেকনাফের সাধারণ মানুষের প্রতি জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের এই সিদ্বান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে। কিন্তু উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় কতিপয় মেম্বার পলাতক, ভোটের সময় বিরুদ্ধে অবস্থান কারণে অনেক দরিদ্র মহিলা এই ভিজিডি প্রকল্প থেকে বাদ পড়ত বলে অভিযোগ ছিল। প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং সচেতনমহল সরকারের এই বিপূল পরিমাণ ভিজিডি বরাদ্ধের ফলে অত্র অঞ্চলের অসহায়-দরিদ্র সব মহিলাই এই ভিজিডি প্রাপ্তির আওতায় আসবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top