ধর্মীয় শিক্ষার মাধ্যমেই শিক্ষাব্যবস্থা পূর্ণতা পায়: প্রধানমন্ত্রী

sk-ha.jpg

অনলাইন |
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্মীয় শিক্ষা সংযুক্ত করা হলেই একটি দেশের শিক্ষাব্যবস্থা পূর্ণাঙ্গ হয়। আর এ জন্যই সংসদে আইন পাস করে কওমি মাদ্রাসার স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

রোববার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শোকরানা মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ধর্মীয় শিক্ষার মাধ্যমেই পূর্ণতা পায়। আমরা এই কওমি শিক্ষাকে স্বীকৃতি দিয়েছি। পাশাপাশি সংসদের মাধ্যমে আইন পাস করেছি। যাতে পরবর্তী সময় কেউ এ স্বীকৃতি খর্ব করতে না পারে।

কওমি শিক্ষার স্বীকৃতির বিষয় উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আপনারা অসহায় এতিমদের জায়গা দেন। তাদের থাকাখাওয়ার ব্যবস্থা করেন। যাদের কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই, আপনারা তাদের জন্য শেষ ঠিকানা। এত কিছুর পর আপনাদের স্বীকৃতি থাকবে না তা তো হয় না।

তিনি বলেন, আমি আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় করি না। আমাকে মেরে ফেলার জন্য আমার ওপর বারবার হামলা করা হয়েছে। আল্লাহ আমাকে বারবার বাঁচিয়েছেন। দেশের মানুষের সেবা করার জন্যই হয়তো আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন।

তিনি বলেন, আমি মসজিদের ইমাম মুয়াজ্জিনদের জন্য কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করে দিয়েছি। যাতে তারা তাদের যে কোনো প্রয়োজনে এ টাকা ব্যবহার করতে পারে।

‘আমি চাই দেশের মানুষ সবাই ভালো থাক। দেশের একটি মানুষও যাতে না খেয়ে থাকে, সে লক্ষ্যে আমার সরকার দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। দেশকে এগিয়ে নিতে আমরা সব ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছি’, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top