উখিয়ায় বন ধ্বংসের নেপথ্যে ৩০টি অবৈধ করাত কল

Ukhiya2-1.jpg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া।
উখিয়ায় বিভিন্ন স্পটে ৩০টি’র মত অবৈধ করাত কলে চিরাই হচ্ছে বনের গাছ। সরকারি কোন প্রকার অনুমতি ছাড়াই অবৈধভাবে করাত কল স্থাপিত হলেও বন বিভাগ রহস্য জনকভাবে নীরব ভূমিকা পালন করছে বলে সংশ্লিষ্টদের মহলের অভিযোগ।
সরজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, রত্মা পালংয়ের ঝাউতালা, কোর্টবাজার ভালুকিয়া সড়ক, উখিয়ার হাজী পাড়া, মৌলভী পাড়া, ফলিয়া পাড়া, টাইপালং, থাইংখালী, পালংখালী, বালুখালী, কুতুপালং, জালিয়া পালংয়ের সোনাইছড়ি, সোনার পাড়া, ইনানী, কোর্টবাজার, রুমখাঁ বাজার ও রুমখাঁ মনির মার্কেট এলাকায় অন্তত ৩০টি করাত কল রয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, স্থাপিত এসব করাত কলগুলোর কোন বৈধ কাগজপত্র নেই। সরকারিভাবে কোন প্রকার অনুমতি না নিয়েই শক্তিশালী সিন্ডিকেট অবৈধ ভাবে করাত কল স্থাপন করেছে।
স্থানীয়রা জানান, এ সব অবৈধ করাত কলে প্রতিদিন হাজার হাজার ঘনফুট কাঠ চিরাই হচ্ছে। তাদের অভিযোগ বন বিভাগের কতিপয় কর্মকর্তা ও বন কর্মীদেরকে মোটা অংকের টাকার বিনিময় ম্যানেজ করে স্থাপিত করাত কলে অবৈধভাবে বনের গাছ চিরাই করা হচ্ছে।
পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের অভিমত অবৈধ করাত কলে প্রকাশ্যে বনের গাছ চিরাই ও পাচার হওয়ায় সরকারি বনাঞ্চল মরুভূমিতে পরিনত হচ্ছে। এতে পরিরেশের ভারসাম্য নষ্ট ও মারাত্মক বিপর্যয় দেখা দিতে পারে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা জানান, ইতিমধ্যে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকটি করাত কল উচ্ছেদ করা হয়েছে এবং বন আইনে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top