হ্নীলায় সীমানা বিরোধের জেরধরে সংঘবদ্ধ হামলায় বৃদ্ধ ও নারীসহ আহত-৩

Teknaf-Pic-B-18-09-18-1.jpg

হুমায়ুন রশিদ : হ্নীলায় জমির সীমানা বিরোধের জেরধরে সংঘবদ্ধ হামলায় বৃদ্ধ ও নারীসহ ৩জন আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
জানা যায়, ১৮ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টারদিকে উপজেলার হ্নীলা আলী আকবর পাড়ার মৃত ছৈয়দুর রহমানের পুত্র আব্দুল গণি প্রকাশ গুনু মিয়া বসত-বাড়ির পাশে দোকান ঘর নির্মাণের কাজ করা অবস্থায় স্থানীয় বশির মেম্বারের নেতৃত্বে জাফর আলীর পুত্র সরওয়ার, মীর আহমদ, নুর মোহাম্মদ, বাদশা, রমজান আলী, সরওয়ারের পুত্র ফরিদ, রবি আলম, খুইল্যা মিয়ার পুত্র গাফ্ফারসহ ৩০/৪০ জনের একটি স্বশস্ত্র গ্রæপ এসে স্থাপনা ভাংচুর করে এবং বৃদ্ধ গুনু মিয়া (৫৫), স্ত্রী আয়েশা বেগম (৫০) ও পুত্রবধু গর্ভবর্তী আমিনার উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। আহতদের চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে রক্তাক্ত গুনু মিয়া (৫৫)কে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এই খবর পেয়ে টেকনাফ মডেল থানার এসআই বিবেকানন্দ দেবনাথ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
স্থানীয় জাফর আলীর পুত্র সরওয়ারের সাথে গুনু মিয়ার দীর্ঘদিন ধরে জমি বিরোধ চলে আসছে। যা নিয়ে স্থানীয় মেম্বার বশির আহমদের নিকট বিচারাধীন ছিল। মেম্বার পক্ষপাতমূলক আচরণ করায় গুনু মিয়া পক্ষ এই সালিশ মেনে নেয়নি। তাই মেম্বার বিপক্ষে হয়ে এই ধরনের ঘটনার সুত্রপাত ঘটিয়েছে।
এই ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বার বশির আহমদ জানান,গুনু মিয়া গং ২৯ শতক জমির মালিক। তাদের দখলে ৪০ শতক জমি রয়েছে। তাদের ৩৩ শতক জমি রেখে অবশিষ্ট জমি বের করে দিতে বলায় এই ঘটনার সুত্রপাত। তবে গুনু মিয়া জানান, আমার দাগের জমিতে আমি স্থিত থাকতে চাই। আমার দাগের জমি ছেড়ে আমি অপরের জমি নিতে না চাওয়ায় মেম্বার ক্ষমতার দাপট খাটিয়ে আমাদের উপর হামলা চালাল। পরস্পর নিকটাত্নীয়দের মধ্যে এই জাতীয় ঘটনা স্থানীয় মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করেছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top