হোয়াইক্যংয়ে সন্ত্রাসী হামলায় ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর আহত

Victim.jpg

Exif_JPEG_420

টেকনাফ প্রতিনিধি :
টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকের জামশেদ সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি বর্তমানে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

২০ জুন বুধবার রাত ৯ টার দিকে হোয়াইক্যং বাজারে শত শত লোকজনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, কিছুদিন পূর্বে ছাত্রলীগ নেতার বড় ভাই কবির টমটম (অটোরিক্সা) ক্রয় করে স্থানীয় এক দোকান (পিয়ারু) থেকে। ক্রেতার সাথে মৌখিক চুক্তিমতে টমটমের মালামাল দেয়া হয়নি। নকল মালামাল দেওয়ায় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দেশীয় সজ্জিত অস্ত্র দ্বারা হামলা চালায় বিক্রেতা পক্ষ। এতে আহত হয় জাকের জামশেদ, কবির আহমদ ও তাদের পিতা মোহাম্মদ হোছন। তবে গুরুতর আহত হন জাকের। তাকে স্থানীয়রা এগিয়ে উদ্ধার করে পাশ্ববর্তী চিকিৎসকের (খোরশেদ ফার্মাসী) শরণাপন্ন করা হয়। এ সময়ও সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল ফের হামলা করতে এসেছে বলে অভিযোগ করে প্রত্যক্ষদর্শীরা।

টমটম ক্রেতা কবির আহমদ জানান, মৌখিক চুক্তি বিক্রেতা আমাকে ঠকিয়েছে। এর প্রতিবাদ করতে গেলে, দেশীয় দেশীয় বন্দুক, দা, ছুরি, কিরিচ নিয়ে লালু চৌধুরীর ছেলে প্রকাশ নাম পেঠান, লাব্বুইয়া, লেদু চৌধুরীর ছেলে জিয়াউর রহমান, কুতুব উদ্দিন, ফায়সাল, দোকানদার পিয়ার মোহাম্মদ, ফরিদ মিস্ত্রির ছেলে মোঃ জালাল সহ অন্যান্যরা।

এব্যাপারে টকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মুন্না হোয়াইক্যং ইউনিয়ন উত্তর শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ী ইনচার্জ মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, দেশীয় অস্ত্রধারীরা জাকের নামক এক ছেলেকে কুপিয়েছে। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। দা- কিরিচ হাতে থাকা অনেকেই পালিয়েছে। তাদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে। তবে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top