চকরিয়ায় বিদ্যুত তারে জলসে গেছে কিশোর

Chakaria-Picture-08-06-2018.jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়ায় পল্লী বিদ্যুত সমিতির বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রাণির অভিযোগ অনেকদিনের পুরানো। এবার প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে সঞ্চালন লাইনে তদারকিতে চরম অবহেলার অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্যে পল্লী বিদ্যুতের সংশ্লিষ্টদের কর্তব্য অবহেলার কারনে সড়কে ঝুলে পড়ে থাকা বিদ্যুৎ তারে জড়িয়ে জলসে গেছে মো.নুরুল হাকিম টাকু (১৫) নামের এক কিশোরের শরীর। গত ৪ জুন দুপুরে উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের সামনে ঘটেছে এ দুর্ঘটনা। আহত কিশোর ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের জাফর আলমের ছেলে। ঘটনার পর পরিবার সদস্যরা প্রতিবেশি লোকজনের সহায়তায় তাকে প্রথমে চকরিয়া উপজেলা সরকারি হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রামে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করেছেন। তবে এখনো আক্রান্ত কিশোর শাররীকভাবে শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন পরিবার।
আক্রান্ত কিশোরের পরিবার ও স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন জানান, চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের সামনে একটি সমিলের পাশে কিছুদিন আগে পল্লী বিদ্যুতের সঞ্চালন লাইন ঝুঁেল পড়ে সড়কে। বিষয়টি দেখভালে পল্লী বিদ্যুতের মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তা থাকলেও ওই এলাকায় অনভিপ্রেত দুর্ঘটনা এড়াতে তাঁরা যথা সময়ে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়নি।
স্থানীয় লোকজন জানান, সড়কে বিদ্যুতের তার ঝুঁেড় পড়ে থাকাবস্থায় গত ৪ জুন দুপুরে হেটে বাড়ি ফেরার পথে অসাবধান বশত: কিশোর নুরুল হাকিম টাকু (১৫) পল্লী বিদ্যুতের তারের সাথে জড়িয়ে দগ্ধ হয়েছে। এতে তাঁর শরীরের উপরের অংশ, বিশেষ করে বুক, ডান হাত ও মুখমন্ডল জলসে গেছে।
স্থানীয়রা জানান, ঘটনার পর প্রতিবেশি কয়েকজন ব্যক্তি আক্রান্ত ওই কিশোরের চিকিৎসা সেবা নিয়ে চকরিয়া পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সাথে যোগাযোগ করেন। কিন্তু তাঁরা কথা দিলেও পরক্ষনে আক্রান্ত কিশোরের চিকিৎসার ব্যাপারে কোন ধরণের উদ্যোগ নেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন পরিবার।
এদিকে অভিযোগের বিষয়ে জানতে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে পল্লী বিদ্যুত সমিতি চকরিয়া অফিসের ডিজিএম (ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার) এর সাথে যোগাযোগের চেষ্ঠা করা হয়। তিনি তাঁর মুঠোফোনের সংযোগ বন্ধ থাকায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।
অপরদিকে আহত কিশোর নুরুল হাকিম টাকুর জলসে যাওয়া শাররীক অবস্থার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখে গতকাল সকালে তাঁর বাড়িতে উপস্থিত হন চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর তরুন আওয়ামীলীগ নেতা জিয়াবুল হক। ওইসময় তিনি আক্রান্ত কিশোরের পরিবারকে জানান, ছেলেটি সুস্থ হতে যাবতীয় চিকিৎসা খচর তিনি (কাউন্সিলর) ব্যবস্থা নেবেন।
বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর জিয়াবুল হক। তিনি বলেন, বিদ্যুত তারে জড়িয়ে এক কিশোরের শরীর জলসে যাওয়ার ঘটনাটি প্রথমে ফেসবুকের মাধ্যমে আমার নজরে আসে। জানতে পারি পল্লী বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে ওই কিশোর আক্রান্ত হলেও প্রতিষ্ঠানটি তাঁর চিকিৎসার ব্যাপারে কোন খোঁজ-খবর নেয়নি। তাই মানবিক বিবেচনার আলোকে আমি সিদ্বান্ত নিয়েছি তাঁর চিকিৎসার জন্য সব খরচ আমি দেবো।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top