আগামী নির্বাচনে নৌকার বিজয়ে যুবলীগ জননেত্রী শেখ হাসিনার অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করবে

Chakaria-Picture-01-06-2018-..jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে গতকাল পহেলা জুন বিকালে কক্সবাজার জেলা যুবলীগের নবনির্বাচিত সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক সোহেলকে গণ-সংর্বধনা দেয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে চকরিয়া মহিলা কলেজ মিলনায়তনে আয়োজন করা হয় সংবর্ধনা পরবর্তী ইফতার মাহফিলের। চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহিদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা আলহাজ্ব কাউছার উদ্দিন কছিরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংর্বধনা সমাবেশের শুরুতে সম্পুর্ণ গণতান্ত্রিকপন্থায় নির্বাচিত জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহাম্মদ বাহাদুর এবং নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক সোহেলকে উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।
অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ ছৈয়দ মাহামুদুল হক। প্রধান মেহমান হিসেবে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চকরিয়া-পেকুয়া মাটি ও মানুষের প্রিয়নেতা আলহাজ জাফর আলম এম এ। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের নবনির্বাচিত সভাপতি যুবসমাজের প্রিয়মুখ সোহেল আহমদ বাহাদুর, নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক যুবসমাজের অহংকার শহিদুল হক সোহেল। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশিদ দুলাল, মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এসএম জাহাংগীর আলম বুলবুল, সহ-সভাপতি মকছুদুল হক ছুট্টো, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ফজলুল করিম সাঈদী, ছৈয়দ আলম কমিশনার, চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দীন চৌধুরী, সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ ওয়ালিদ মিল্টন, চকরিয়া উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি,জেলা যুবলীগ নেতা বাবু তপন কান্তি দাস পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক সেলিম সিকদার লিটন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজবাউল হক, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাহাব উদ্দিন, জেলা যুবলীগের হুমায়ুন কবির চৌধুরী হিমু, ইমরুল কায়েস চৌধুরী, মোঃ কাইছার, এডভোকেট ইমরুল কায়েস মানিক, উখিয়া উপজেলা যুবলীগের সাঃ সম্পাদক ইমাম হোসেন, জেলা যুবলীগের এডভোকেট শামসুল আলম, এডভোকেট সরওয়ার, ইউছুব নেওয়াজ, আবু ছালেহ্, সিরাজ, আমির হোসেন, ইব্রাহিম, জমির উদ্দিন, এহেছান, মোনাফ সিকদার, এমএ আজাদ, শাহেদ পাবেল, আরিফ, জসিম উদ্দিন।
অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন,সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ, চকরিয়া পৌর যুবলীগের সভাপতি হাসানগীর হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সোহেল, চকরিয়া উপজেলা শ্রমিকলীগের আহবায়ক জামাল উদ্দীন, উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাউন্সিলর মুজিবুল হক মুজিব, সহ-সভাপতি জাবেদ হোসেন পুতুল, কামরুল হাসান কাইছার, মহিদুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান, সিনিয়র সদস্য হেলাল উদ্দীন হেলালী, হায়দার আলী, মোহাম্মদ ওসমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে মামুনুল করিম, মো. রাসেল, শফিউল আজম, সাংগঠনিক সম্পাদক অহিদুজ্জামান অহিদ, রেফায়েত সিকদার, তারেকুল ইসলাম চৌধুরী, ফরহাদ হোসেন পার্কেল, অর্থ সম্পাদক আজিজুল হক, দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, তথ্য সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক সাইদুল করিম, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোঃ সালাহ উদ্দীন, স্বাস্থ্য সম্পাদক মাহামুদুল হক চৌধুরী তফসির, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম মিটু, মুক্তিযোদ্ধা সম্পাদক আবদুল আলম, উপ-দপ্তর সম্পাদক মুজিবুল হক, সহ-সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, জয়নাল হাজারী, শহিদুল ইসলাম টিপু, এডঃ জিয়াবুল করিম, মোঃ শফি আলম, হাবিবুর রহমান, মো.আলমগীর, জাফর আলম, আব্দুর রশিদ, আবদুল হামিদ,মহিউদ্দীন,ফোরকানুল ইসলাম,মুজিবুর রহমান,এনামুল হক,মনজুর হাসনাত, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেফায়াতুল কবির বাপ্পী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজিদ হোসেন সাকিব, সাইফুল ইসলাম বাবুল, মোঃ সাইফুদ্দীন, মঈনউদ্দীন হাসান সজীব, শহিদুল ইসলাম, মাহাবুর রহমান মাবু, নাজেম উদ্দীন, সাদ্দাম হোসেন। এছাড়াও সভায় বিভিন্ন ইউনিয়ন যুবলীগের নেতার্কমীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লক্ষ্যারচর যুবলীগের সভাপতি সাইকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জুবাইদুল হক মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মঈনউদ্দীন, ফাঁসিয়াখালীর সভাপতি নাজমুল হাসান লিটন, সাঃসম্পাদক নাঈমুল হক,হালিম,বরইতলী যুবলীগের যুগ্ন আহব্বায়ক কামরুল ইসলাম,সাহাবউদ্দীন,মোঃ কাইছার,মোঃ হানিফ,চিরিংগা যুবলীগের যুগ্ন আহব্বায়ক জাহাংগীর আলম,মোঃ কালু, মোঃ ইসমাইল,রুহুল আমিন,ডুলহাজারা যুবলীগের আহব্বায় তৌহিদুল ইসলাম,যুগ্ন আহব্বায়ক,আমান উল্লাহ্,আবদু রশিদ,হাসানুল হক আদর,জামাল উদ্দীন,কাইছার মোঃ বাবুল,আবদুল আজিজ,খুটাখলীর যুবলীগের সভাপতি এডঃ ওমর ফারুক শিবলী, সাঃ সম্পাদক আবু তৈয়ব,মোঃ ফারুক, মিজানুর রহমান, ইমরান, কাকারা যুবলীগের আহব্বায়ক অহিদুজ্জামান অহিদ, যুগ্ন আহব্বায়ক মিনারুর রহমান, নজরুল ইসলাম,রাজিব,আজিজুল হাকিম সোহেল, বমুবিলছড়ি যুবলীগের সভাপতি ডাঃ মিজানুর রহমান, হারবাং যুবলীগের সভাপতি জাহেদুল আলম লিটন, সাঃ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, আমিরুল কবির জন, সাজ্জাদ হোসেন, কৈয়ারবিল যুবলীগের আহব্বায়ক আবদু রশিদ, যুগ্ন আহব্বায়ক নুরুল মোস্তফা, নাজেম উদ্দীন, জামশেদ আলম রুবেল, মোরশেদ আলম, সুরাজপুর- মানিকপুর- যুবলীগে আহব্বায়ক ফেরদৌস আলম, চকরিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা পারভেজ, মাতামুহুরি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিছবাহ উদ্দীন বেলাল, উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা আরহান মোঃ রুবেল,আবদুল্লাহ আল আনাচ,সৃজন দে, পৌর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রাজু দাস শাওন ও পহরচাঁদা ছাত্রলীগের সাঃ সম্পাদক মোঃ আমজাদ হোসেন প্রমুুখ।
সংবর্ধনা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ ছৈয়দ মাহামুদুল হক বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে জননেত্রী শেখ হাসিনার অতন্দ্র প্রহরীর ভুমিকা পালন করতে হবে। সেই জন্য এখন থেকে তৃনমুলে যুবলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম আরো গতিশীল এবং শক্তিশালী করতে হবে। তাঁরা বলেন, বিএনপি-জামাত জোট নানা অপতৎরতার মাধ্যমে আগামী নির্বাচন বানচাল করার অপচেষ্ঠা চালাচ্ছে। তাদের এই অপরাজনীতির জবাব সাংগঠনিকভাবে দিতে হবে।
তিনি বলেন, বিএনপি গোটা দেশে মাদকের সা¤্রাজ্য গড়ে তোলে, দেশের যুব ও তরুণ সমাজকে অন্ধকারে ও বিপথে ঠেলে দিয়ে হাজার হাজার কোটি কাল টাকার পাহাড় গড়েছিল। খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে ছিলেন এ মাদকের গডফাদার। তিনি বলেন, তরুণ সমাজকে রক্ষায় এবার প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে অলআউট অ্যাকশনে নেমেছেন। জাতির বৃহত্তর স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে মাদক সম্রাটদের বিরুদ্ধে এ অ্যাকশন চলবে। সারাদেশের মানুষ এ অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়েছে; কিন্তু বিএনপি নানা ছল-ছুতায় এ অভিযানের বিরুদ্ধে কথা বলে যাচ্ছে। বিএনপি এ জাতিকে অন্ধকারে রাখতে চায়। এজন্য বিএনপির অপপ্রচারের বিরুদ্ধে যুবলীগকে আরও সোচ্চার হতে হবে।
সভায় প্রধান বক্তা চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম বলেছেন, চকরিয়া-পেকুয়া জনপদে আওয়ামীলীগের মতো যুবলীগ অতীতের তুলনায় বর্তমান সময়ে সাংগঠনিকভাবে বেশ দক্ষতা অর্জন করেছে। যুবলীগের নেতাকর্মীরা সংগঠনের জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করছেন। এই ধারা আগামীতেও অব্যাহত রাখতে হবে। কারণ আগামী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমাদেরকে পেতে হবে। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে জনগনের কল্যাণ সাধন হবে। দেশের অগ্রউন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলাকে উন্নয়নের মাধ্যমে এগিয়ে নিতে হলে এখানে আওয়ামীলীগের মনোনীত তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের প্রতীক নৌকার বিজয় এবার ঘরে তুলতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top