দু’পুত্রকে মাদক তালিকায় জড়িত করায় সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ আলীর তীব্র প্রতিবাদ ও চ্যালেঞ্জ

Teknaf-Pic-A-17-05-18.jpg

বার্তা পরিবেশক : গত ১১মে দৈনিক ইত্তেফাক, ১২ মে জেলা থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজকের দেশ-বিদেশ ও ১৫ মে দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকাসহ বিভিন্ন অনলাইন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত “ দেশে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে ১১৫১জন গডফাদার ” শীর্ষক সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। উক্ত সংবাদাংশে আমার পুত্র মাহবুব মোরশেদ ও রাশেদ মাহমুদ আলীর নাম জড়ানো হয়েছে। আমি উক্ত সংবাদাংশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলতে চাই,মাদকের বিরুদ্ধে সক্রিয় থাকায় আমার কণ্ঠরোধ করার জন্য রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও ইয়াবা চোরাকারবারীদের সাজানো চক্রান্ত ছাড়া কিছুই না।
আপনারা অবগত আছেন যে, আমার পরিবারটি রাজনৈতিক পরিবার। আমার বড় ছেলে মাহবুব মোরশেদ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক ও রাশেদ মাহমুদ আলী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আইনবিষয়ক সম্পাদক ছিল। উভয়ে আমার সাথে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত রয়েছে। আমার বিগত ৪৫বছর রাজনৈতিক জীবনে কেউ আমার চরিত্রে কলংক লেপন করতে পারেনি। কক্সবাজার জেলায় স্বচ্ছ রাজনৈতিক ব্যক্তি হিসেবেও আমার সুনাম রয়েছে। বিগত ১/১১ এর সময় শত্রুপক্ষ অনেক পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র করে আমাকে কোন ধরনের ষড়যন্ত্রের জালে ফাঁসাতে পারেনি। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আমার দীর্ঘদিনের সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য সুকৌশলে প্রথমে আমার মেঝ ছেলে রাশেদ মাহমুদ আলীর নাম জড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টায় ছিল। বিগত কিছুদিন ধরে দেখছি বর্তমানে আমার বড় ছেলে মাহবুব মোরশেদের নাম জড়ানোর চেষ্টায় লিপ্ত হচ্ছে। তারা দুজনেই সমাজে প্রতিষ্ঠিত বৈধ ব্যবসায়ী। এই সীমান্ত জনপদে ইয়াবা চোরাচালান প্রচলন হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন সমাবেশ ও মিডিয়ায় ইয়াবার বিরুদ্ধে দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে স্বাক্ষাৎকার দিই। এতে ইয়াবা চোরাচালানে সংশ্লিষ্ট একটি মহলের মাথাব্যথা শুরু হয়। মাহবুব মোরশেদ ও রাশেদ যেহেতু রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত তাই আগামী দিনে নেতৃত্ব দিবে এটাই স্বাভাবিক। তাই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও ইয়াবা চোরাচালানী চক্রের সদস্যরা আমার পরিবারকে তাদের সমপর্যায়ে নেওয়ার জন্য উভয় চক্র মিলেই হয়তো সুকৌশলে মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকায় মাহবুব মোরশেদ ও রাশেদ মাহমুদ আলীর নাম জড়িয়ে আমাকে সামাজিক, রাজনৈতিক ও পারিবারিকভাবে হেয়পন্ন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। আমার পরিবার সম্পর্কে আপনারা সচেতন মহল নিশ্চয়ই অবগত রয়েছেন।
আমি আপনাদের স্পষ্টভাবে বলতে চাই, আমার ছেলেদ্বয় কোন দিনও মাদক চোরা-চালানের মতো ঘৃণিত কাজে সম্পৃক্ত ছিলনা এবং এখনো নেই। যদি কারো কাছে কোন ধরনের মাদক চোরাচালানে সংশ্লিষ্টতার তথ্য-প্রমাণ থাকে তা প্রমানের জন্য চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করলাম। আমি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তালিকা প্রকাশ করুন এবং প্রচলিত আইন অনুসারে শাস্তির ব্যবস্থা করা হউক। আগামীতে এই জাতীয় সংবাদ পরিবেশনে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করার জন্য সাংবাদিক ভাইদের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী :
আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী
০১৭১৫-৬১৬১৬৫
সাবেক সংসদ সদস্য,উখিয়া-টেকনাফ।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top