চকরিয়ায় বাড়িতে ঢুকে চতুর্থ শ্রেণীতে পড়–য়া শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

gangrape.jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়ায় পরিবারের কেউ না থাকার সুযোগে বাড়িতে ঢুকে চতুর্থ শ্রেণীতে পড়–য়া এক শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে বখাটে যুবক। শুক্রবার রাতে উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের বুড়িপুকুর এলাকায় ঘটেছে এ ঘটনা। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত বখাটে পাশের এলাকা চকরিয়া পৌরসভার ৭নম্বর ওয়ার্ডের খোন্দকার পাড়া গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে আবদুল কাদের পলাতক রয়েছে। চকরিয়া থানা পুলিশ আক্রান্ত ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে মেডিকেল চেকআপের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে পাঠিয়েছে।
এ ঘটনায় ভিকটিম ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে শনিবার চকরিয়া থানায় অভিযুক্ত বখাটে আবদুল কাদেরকে আসামি করে একটি এজাহার দিয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত বখাটে যুবককে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, শুক্রবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে ওই ছাত্রীকে বাড়িতে একা রেখে তার পরিবারের লোকজন প্রতিবেশি এক আত্বীয়ের বাড়িতে সামাজিক অনুষ্টানে যায়। ওইসময় বাড়িতে পরিবারের কেউ না থাকার সুযোগে পাশের খোন্দকার পাড়া এলাকার বখাটে যুবক আবদুল কাদের বাড়িতে ঢুকে ওই স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে।
ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ঘটনার সময় ওইছাত্রীর শোর চিৎকারে প্রতিবেশি লোকজন ছুটে আসলে বখাটে যুবক আবদুল কাদের পালিয়ে যায়। ঘটনার পর পরিবার সদস্য ও স্থানীয় লোকজন ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক পুলিশের সহায়তায় ওই ছাত্রীকে মেডিকেল চেকআপের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে প্রেরণ করে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘটনার বিষয়ে আক্রান্ত ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে থানায় বখাটের বিরুদ্ধে একটি এজাহার জমা দিয়েছেন। হাসপাতালে নেয়ার পর দেখা গেছে ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহৃ রয়েছে।
ওসি বলেন, মেডিকেল চেকআপ রিপোর্ট হাতে পেলে ধর্ষণের বিষয়টি স্পট করে বলা যাবে। তারপরও অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত বখাটে যুবককে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top