আমরা কি কখনো ভেবেছি, যুব সমাজ কেন মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ছে

20245433_1271501372959232_2461281056180071628_n.jpg

আব্দুর রহিমের ফেইসবুক ওয়াল থেকে :
আমাদের যুব সমাজের যারা মাদক (ইয়াবা) ব‍্যবসায় জড়িয়ে পড়ছে আমরা তাদের ঘৃণা’র চোখে দেখছি, তাদেরকে নিয়ে দুঃখবোধ করছি, শংকিত হচ্ছি, আমরা চেয়ে চেয়ে দেখছি আমাদের বেপরোয়া যুব সমাজ; লজ্জিত হচ্ছি, ভবিষ্যৎ প্রজন্ম নিয়ে চিন্তিত হচ্ছি।

কিন্তু, আমরা কী আধো ভেবে দেখছি যুব সমাজের যে অংশটি মাদক ব‍্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ছে তা ঠিক কী কারণে ও কেনো জড়িয়ে পড়ছে?

হ‍্যাঁ,প্রশ্নটি’র উত্তরে অনেকেই হয়তো বলতে বা মন্তব্য করতে পারেন উচ্চাভিলাষী জীবন যাপনের লোভে, নৈতিক স্খলন জনিত হয়ে, অথবা পারিবারিক কালোবাজারির ঐতিহ্য ধরে রাখতে।

কিন্তু,আমরা কী কখনো আমাদের সমাজ বা জনপদের দিকে চোখ মেলে তাকিয়ে দেখেছি আয়ের উৎসের দিক দিয়ে আমরা কতটুকু দরিদ্র! কতটুকু অনগ্রসর! বিশেষ করে আমাদের টেকনাফ এলাকাটির কথা বলছি।

আমরা কী ভেবে দেখেছি জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে আমাদের পর্যাপ্ত পরিমাণ হালের জমি যে নেই তা, আমাদের আছে কী একপাশে নাফ নদী, অন্য পাশে বঙ্গোপসাগর আর পাহাড়। যেখানে মাছ ধরা’র কাজ ও লাকড়ি সংগ্রহ ছাড়া আর কিছুই করার নেই।

সরকারি বেসরকারি উদ্যোগে এমন কোনো কর্মসংস্থানও গড়ে উঠছেনা বা কর্মের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়নি যেখানে শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত,অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন যুব সমাজদের একটা সুষ্ঠু কর্মসংস্থানের বিহিত সমাধান অন্তত হতো। যুগ যুগ ধরে অবহেলিত আমাদের এ জনপদে কর্মসংস্থানের বা কর্ম উন্নয়ন মূলক সুদৃষ্টিপাত সরকারি বেসরকারি ভাবে কোনো কালেও দেখা যায়নি।

আমরা একসময় ছোটো বেলায় দেখেছি এ জনপদের কিছু মধ‍্যবিত্ত মানুষ বার্মা থেকে ধান চাল আমদানি করতো ও কিছু নিতান্ত মানুষ স্থানীয় পাসপোর্ট নিয়ে জুতা সেন্ডেল, আচার লুঙ্গি, নিয়ে এপারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতো স্থলবন্দর চালু হওয়ার পর এ এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর একটি অংশের সে সুযোগও বন্ধ। তা ছাড়া অধিকাংশ টেকনাফের মানুষ জমি জিরাত বিক্রি করে হলেও জীবিকার সন্ধানে বিভিন্ন আরব দেশে পাড়ি দিতো অনায়াসে; সে সময় বিদেশ যাওয়ার সুযোগও ছিলো অঢেল এবং অধিকাংশ মানুষ সফল হয়ে দেশে ফিরতো, কিছু কৃষক শ্রেণির মানুষ ধান,পান সুপারী ফলাতো, আর কিছু জেলে সম্প্রদায়ের মানুষ মাছ ধরে জীবন অতিবাহিত করতো সুখেই তাদের দিন চলে যেতো। এখন সে সুযোগ সুবিধাও নেই বললে চলে!

পৃথিবীর অধিকাংশ পিতা নিশ্চয় চায় না সন্তান কুপথে যাক্। তাহলে ভেবে দেখা দরকার কোনো পিতা তাঁর কর্ম বা কারবার খুঁজতে থাকা সন্তানকে কোন্ সৎ ও যুগ অনুযায়ী কাজটি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেবে এখানে?
বিষয়টির প্রতি সরকারের অধিকতর দৃষ্টি দেয়া দরকার।

আব্দুর রহিম
কবি ও লেখক

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top