চকরিয়ায় ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে অবশেষে টুরিস্ট পুলিশের কার্যক্রম উদ্বোধন

Chakaria-Pictuer-05-03-2018-1-1.jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারাস্থ দেশের প্রথম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাফারি পার্কে অবশেষে ট্যুরিস্ট পুলিশের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে ট্যুরিস্ট পুলিশের ২২ সদস্যের নতুন ইউনিটের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন প্রধান অতিথি পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোসলেহ্ উদ্দিন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগের চট্টগ্রামের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা গোলাম মওলা, চকরিয়া পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম, ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার অঞ্চলের এসপি জিল্লুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার ফজলে রাব্বী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়হান কাজেমী, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আজাদ, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া থানার ওসি তদন্ত মো.মিজানুর রহমান, ডুলাহাজারা ইউপি চেয়ারম্যান মো.নুরুল আমিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজি জামাল হোছাইন, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল এহেছান চৌধুরী সাইফুল, ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান শওকত আলী প্রমুখ।
জানা গেছে, প্রতিষ্ঠার পর থেকে পার্কের অভ্যন্তরে বির্স্তীণ বনাঞ্চলের ভেতরে ছিনতাই, মাদকের কারবার ও অসামাজিক কার্যকলাপ চালানোর অভিযোগ দীর্ঘদিনের। তবে এসব অপরাধ প্রবণতা রোধে পার্ক কর্তৃপক্ষেরও চেষ্টার কমতি ছিল না। এরই প্রেক্ষিতে বছর আগে পার্কে বসানো হয় সিসিটিভি। কিন্তু এসব নিরাপত্তামুলক প্রযুক্তির মাঝ্যে বিক্ষিপ্তভাবে অনেক সময় ঘটে গেছে অনাকাঙিক্ষত অনেক ঘটনা।
সাফারি পার্কের রেঞ্জ কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম বলেন, নানা ঘটনা আর অঘটনের ফলে আমরা পার্কের ভেতরে বাইরে দর্শনাথীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য গতবছরের অক্টোবর মাসে এখানে একটি ট্যুরিস্ট পুলিশের ইউনিট স্থাপনে বিভাগীয় কর্মকর্তার দপ্তর হয়ে পুলিশ হেড কোয়াটারে আবেদন করি। এরপর সম্ভাব্যতা যাছাই করে পুলিশ হেড কোয়াটার ডিসেম্বর মাসে ট্যুরিষ্ট পুলিশের কার্যক্রমের ব্যাপারে নীতিগতভাবে অনুমোদন দেন।
তিনি বলেন, গতকাল আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে সাফারি পার্কে শুরু করা হয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশের সেবা কার্যক্রম। এতে করে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে এখন থেকে অনাকাঙিক্ষত ঘটনার পরিসমাপ্তি ঘটেছে। পার্কে আগত দেশি–বিদেশি পর্যটক–দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার হুমকি নিয়ে আর বিচলিত থাকতে হবে না আমাদেরকে।
ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের বনবিট কর্মকর্তা মাজহারু ইসলাম চৌধুরী বলেন, প্রায় ৯শ হেক্টর বনজসম্পদ সমৃদ্ধ পার্কে আগত দেশি–বিদেশি পর্যটক–দর্শণার্থীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখানে ট্যুরিস্ট পুলিশের একটি ইউনিট স্থাপনের জন্য সিদ্বান্ত নেন। দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে গতকাল ২২ সদস্যের ট্যুরিস্ট পুলিশের নতুন ইউনিট তাদের কার্যক্রম শুরু করার মাধ্যমে পার্কের নিরাপত্তার দায়িত্ব নিয়েছেন।
তিনি বলেন, ২২ সদস্যের ইউনিটে রয়েছেন ১জন পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর), ২জন উপ–পরিদর্শক (এসআই), ১জন সহকারী উপ–পরিদর্শক (এএসআই) ও বাকীরা কনস্টেবল। তারা পালাক্রমে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন। পার্কে ট্যুরিস্ট পুলিশের জন্য এখনো স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ হয়নি। তবে আপাতত তারা একটি রেস্ট হাউজে থেকে দায়িত্ব পালন করবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top