জেরুজালেমের একটি পাথরের মালিকানাও ইহুদিদের নেই

al_ajhar_66643_1513512409.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক |
মিশরের আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রান্ড মুফতি আহমেদ আত-তাইয়্যেব বলেছেন, আল-আকসা মসজিদ মুসলমানদের কাছে মসজিদুল হারাম এবং মসজিদে নববীর (সা.) মতো পবিত্র স্থান।

তিনি আরও বলেছেন, “জেরুজালেম শহরের একটি পাথরের টুকরার মালিকানাও ইহুদিদের নেই। সেখানকার ইট-কাঠ-পাথর সব মুসলমানদের সম্পদ। কাজেই তারা জেরুজালেমে তাদের উপাসনালয় থাকার যে দাবি করে তা ভিত্তিহীন।”

আল-আজহারের গ্রান্ড মুফতি শনিবার কায়রোয় এক বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। আল-আকসা মসজিদ মুসলমানদের কাছে কেন পবিত্র স্থান, তার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি কোরআনের আয়াত ও হাদিসের বাণী তুলে ধরেন। আহমেদ আত-তাইয়্যেব বলেন, ইসলাম আবির্ভাবের আগেও জেরুজালেম শহরে আরবরা বসবাস করত।

তিনি বলেন, ওল্ড টেস্টামেন্টকে (তাওরাত) উদ্ধৃত করে ইহুদিরা আল-আকসা মসজিদকে তাদের সম্পদ বলে যে দাবি করে, তার কোনো ভিত্তি নেই।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেম শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন, আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয় তার নিন্দা জানিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের ষড়যন্ত্র রুখে দেয়ার জন্য কার্যকর ব্যবস্থা নিতে মুসলিম দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

মুসলমানদের প্রথম কেবলা আল-আকসা মসজিদসমৃদ্ধ শহর জেরুজালেম ১৯৬৭ সালে ইহুদিবাদী ইসরাইল দখল করে নেয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ফিলিস্তিন জবরদখল করে প্রতিষ্ঠিত অবৈধ রাষ্ট্র ইহুদিবাদী ইসরাইলকে জাতিসংঘ স্বীকৃতি দিলেও জেরুজালেম শহরের ওপর ইসরাইলের দখলদারিত্বকে স্বীকৃতি দেয়নি এই বিশ্বসংস্থা। অথচ সেই শহরটিকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন ট্রাম্প। তার এই ঘোষণার বিরুদ্ধে মুসলিম বিশ্বে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top