রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্ব নিচ্ছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন

armed_police_63889_1511040987-1.jpg

: রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সার্বিক নিরাপত্তায় পুলিশের পাশাপাশি ১৩ তম আর্মড পুুলিশ ব্যাটালিয়ন কাজ করবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি ড. এসএম মনির উজ জামান।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইসু্যতে ১৩ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন গঠনের কাজ প্রায় চূড়ান্ত হয়েছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের সার্বিক নিয়ন্ত্রণে এই ব্যাটালিয়নের কাজ শুরু হবে। শনিবার কক্সবাজারে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে রোহিঙ্গা সমস্যা ও সার্বিক অইন শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

চট্রগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কেবল ৫টি পুলিশ ফাঁড়ি নয়। যত প্রয়োজন তত সংখ্যক পুলিশ দিয়েই ক্যাম্পের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। প্রয়োজনে পুলিশ ফাঁড়ি বাড়ানো হবে।

তবে আশা করছি ব্যাটালিয়ন চালুর পর কোনও প্রকার অসুবিধা দেখা দিবে না। কারন প্রথম থেকেই প্রায় সাড়ে ৭শ’ সদস্য নিয়ে বাংলাদেশে এই ১৩ তম ব্যাটালিয়ন চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সের ডিআইজি (প্রশাসন ও ডিসিপি্লন) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ সফলতার সঙ্গে রোহিঙ্গা সংক্রান্ত দায়িত্ব পালনে সচষ্টে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ইতিপূর্বে ব্যাটালিয়ন চালুর সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। সুতারাং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও ক্যাম্পের বাইরে আইনশৃংখলা রক্ষায় ব্যাটালিয়ন আশা করি সফল ভূমিকা পালন করবে।

তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলায় ১১টি চেক পোস্টসহ বিভিন্নস্থানে ৩২টি তল্লাশী চেকপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। পুলিশের এসব চেকপোস্টের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে যাওয়া ঠেকানো হচ্ছে।

সভায় বাংলাদেশ পুলিশের ডিআইজি (অপারেশন) ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খালেদ মাহামুদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রুহুল কুদ্দুস, চাউলু মারমা, সহকারি পুলিশ সুপার কাজী মতিউল ইসলাম, রতন কুমার, বাবুল বণিক, সহকারি পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, টু্যরিস্ট পুলিশের সহকারি পুলিশ সুপার রায়হান কাজমি, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি রণজিত কুমার, চকরিয়া থানার ওসি বকতিয়ার উদ্দিন চেৌধুরী, কুতুবদিয়া থানার ওসি দিদারুল ফেরদেৌস, টেকনাফ থানার ওসি মাইন উদ্দিন খান, মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার নাথ, ওসি ডিবি মনিরুজ্জামান, উখিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের, রামু থানার ওসি লিয়াকত আলী, হাইওয়ে পুলিশের ওসি মোজাহিদসহ কক্সবাজারের বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top