অনৈতিক কাজে জড়াচ্ছে রোহিঙ্গা তরুণীরা

IMG_20171117_211503.jpg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া :
নগদ টাকা আয়ের পাশাপাশি উন্নত জীবনের আশায় মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা তরুণীরা নানা ধরনের অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত কয়েকদিনে কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে শতাধিক রোহিঙ্গা তরুণীকে ‘উদ্ধার’ এবং অন্তত ৫০ জন দালালকে সাজা দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ধরনের সামাজিক অপরাধ দমনে রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করা এনজিওগুলোর সহযোগিতা চেয়েছে পুলিশ প্রশাসন।
আগস্ট থেকে এখনও পর্যন্ত অনুপ্রবেশ করা সাত লক্ষাধিক রোহিঙ্গার অর্ধেকের বেশিই নারী ও শিশু। কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া উপজেলায় অবস্থান করছেন তারা। কিন্তু বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে থাকা রোহিঙ্গা তরুণীরা নানা অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ায় সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে বলে শঙ্কা কক্সবাজার পুলিশ প্রশাসনের। বিশেষ করে উন্নত জীবনের আশায় তারা আশ্রয় শিবির ত্যাগের চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে দাবি পুলিশের।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আফরাজুল হক টটুল এ বিষয়ে বলেন, ‘রোহিঙ্গা তরুণীরা বলছেন, মিয়ানমারে তারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এখন উন্নত জীবনের আশায় এ অনৈতিক কাজে জড়াচ্ছেন’।
রোহিঙ্গা তরুণীদের অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ার হার ক্রমশ বাড়তে থাকায় গেল এক সপ্তাহ ধরে বিশেষ অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। এরইমধ্যে বিভিন্ন হোটেল থেকে শতাধিক রোহিঙ্গা তরুণীকে উদ্ধারের পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দেয়া হয়েছে ৫০ জন দালালকে’।উখিয়া
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নিকারুজ্জামান বলেন, ‘কেউ কোনো রোহিঙ্গা নারীকে নিয়ে যাচ্ছেন; এ ধরনের কোনো সংবাদ পেলেই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করছি আমরা। এছাড়া তাদের মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজাও দেয়া হচ্ছে’।
প্রতারণামূলক কাজে পা না বাড়ানোর জন্য আশ্রয় শিবিরগুলোতে মাইকিং করেছে প্রশাসন। এত বিশাল জনগোষ্ঠীর সামাজিক অপরাধ সহজেই প্রতিরোধ করা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন কক্সবাজার জেলা পুলিশের এই শীর্ষ কর্মকর্তা। এই অবস্থায় আশ্রয় ভিত্তিক এনজিওগুলোর সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।
কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ড. এ কে এম ইকবাল হোসেন বলেন, ‘এই সামাজিক অপরাধগুলো দমনের ক্ষেত্রে আমাদের পারিবারিক মূল্যবোধ ও সামাজিক মূল্যবোধকে জাগ্রত করতে হবে।’
অন্যদিকে মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে এইডস, হেপাটাইস ‘বি’ এর মতো নানা ধরনের প্রাণঘাতি রোগের প্রকোপ রয়েছে। সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, সম্প্রতি পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে ৬৫ জনকে এইডস রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। সামাজিক মূল্যবোধের পাশাপাশি ধর্মীয় অনুশাসনও বাংলাদেশের সমাজ ব্যবস্থার মূল ভিত্তি। কিন্তু অনৈতিকতা বাড়তে থাকলে এই ভিত্তি দুর্বল হয়ে পড়তে পারে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top