চিকিৎসা মেলেনি গুলিবিদ্ধ নুরজাহানের

Tek-Rohingha-pic_3-2-Copy.jpg

নুরুল করিম রাসেল, টেকনাফ টুডে ডটকম |
রাখাইনের নিলাম্বর পাড়ার স্বামীহারা নুরজাহান(৪৫)। ৩ মেয়ে ও ২ নাতী নিয়ে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন টেকনাফে। সেনারা রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর প্রথমদিকে তার হাটুতে গুলি লাগে। হামলার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি জানান, সেনারা বৃষ্টির মতো গুলি করতে করতে গ্রামে ঢুকে। গুলিতে তার হাটুর মাংসপিন্ড উড়ে যায় তার। প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনি গ্রামের একটি কচুক্ষেতে আশ্রয় নেন। মেয়েরা পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। পরে সেনাবাহিনী চলে গেলে মেয়েদের খুঁজে বের করে বাংলাদেশের পথে রওয়ানা হন। সেই ক্ষত নিয়ে খুড়িয়ে ও হামাগুড়ি দিয়ে ১৫দিন পথ অতিক্রম করে তিনি টেকনাফে পৌঁছেন। পথিমধ্যে একবার সেনা টহল দলের হাতে ধরা পড়েছিলেন তবে কোন পুরুষ না থাকায় শুধু নারীদের দেখে ছেড়ে দেন বলে জানান তিনি।

নুরজাহান জানান, তার পায়ের ক্ষত থেকে গন্ধ বেরুচ্ছে যা তিনি নিজেও সহ্য করতে পারছেন না।
কোথায় চিকিৎসা পাওয়া যাবে, কোথায় গিয়ে তিনি আশ্রয় নিবেন তাও জানেননা।

তার বিবাহিত স্বামীহারা এক মেয়ে মরিয়ম ও অবিবাহিত কুলসুমা, সুফিয়াসহ ৩ মেয়ে ও ২ নাতীকে নিয়ে তিনি সোমবার শাহপরীরদ্বীপ সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে ঢুকেন। পালানোর পথে অনাহারে অর্ধাহারে দিন কেটেছে তাদের। গত ৪দিন ভাতের দেখা পাননি বলে জানান নুরজাহান।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top