মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিক ধরতে সাঁড়াশি অভিযান শুরু

untitled-1_50766_1498840365.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক :
মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিক ধরতে স্থানীয় সময় শুক্রবার মধ্যরাত থেকেই সাঁড়াশি অভিযান শুরু করছে কর্তৃপক্ষ।

ই-কার্ড নিবন্ধনের সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে অবৈধ শ্রমিকদের বৈধ হতে এই ই-কার্ড নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১৪ হাজার ৫৪১জন নিয়োগকারীর মাধ্যমে ২ লাখ ৬০ হাজার ৯৮১জন নিবন্ধন করেছে।

এর মধ্যে ১,৪০,৭৪৬ জনকে ই-কার্ড ইস্যু করা হয়েছে। কিন্তু এই সংখ্যা কর্তৃপক্ষের প্রত্যাশার মাত্র ২৩%।

মালয়েশিয়ায় ইমিগ্রেশন বিভাগের লক্ষ্য ছিল প্রায় ৬ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে ই-কার্ডের আওতায় নিবন্ধন করানো যাবে।

ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তাফার আলী অবৈধ অভিবাসীদের নিবন্ধনের এই চিত্র দেখে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি বহুবার এই ই-কার্ড নিবন্ধনের সময়সীমার ওপর জোর দিয়েছি। এই সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না।

তিনি বলেন, সময়সীমা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অবৈধ অভিবাসীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু হবে এবং তাদের নিয়োগদাতাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

এছাড়া যারা স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে আসা লোকদের চাকরি দিয়েছে তারাও রেহাই পাবে না বলে জানান মুস্তাফার আলী।

এদিকে শেষ মূহুর্তে ইমিগ্রেশন বিভাগের সদর দফতরে অবৈধ শ্রমিক এবং নিয়োগদাতাদের এখন উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। তারা শেষ সময়ে ই-কার্ডের নিবন্ধনের জন্য হাজির হয়েছিলেন।

মুস্তাফার আলী বলেন, শুক্রবার মধ্যরাতেই যেহেতু নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হয়ে যাচ্ছে, সেহেতু ইমিগ্রেশন বিভাগের কর্মকর্তারা খুব বেশি হলে শনিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত কাজ করবে।

তিনি বলেন, রাত সাড়ে ১১টার পর যেসব আবেদন জমা পড়বে সেগুলো একপাশে রাখা হবে। কারণ আগে যারা আবেদন করেছে তাদের নিবন্ধনের প্রক্রিয়া আগে সম্পন্ন করা হবে।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় সবচেয়ে বেশি অবৈধ শ্রমিক হলেন বাংলাদেশিরা। এরপর রয়েছেন ইন্দোনেশিয়া, মায়ানমার এবং নেপালের নাগরিক।

ই-কার্ড নিবন্ধনের আওতায় কতজন অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিক নিবন্ধিত হয়েছেন তার হিসাব এখনও জানা যায়নি।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top